কানাডায় দুর্নীতিবাজদের অভয়ারণ্য এবং আমার কিছু কথা

451
AdvertisementCBN-Leaderate

মো. আতিকুল ইসলাম, টরন্টো ||

দুর্নীতির বিরুদ্ধে অনেক সোচ্চার… ঠিক আছে তা হওয়াটাই কাম্য। দুর্নীতিবাজ আর চোরেরা দেশ থেকে লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা পাচার করে নিয়ে আমাদের কানাডার মত দেশেই নিয়ে আসছে প্রতিদিন। এর বেশিরভাগই আসছে হুন্ডির মাধ্যমে। এই হুন্ডির ব্যবসা কারা করছে তাও আপনার-আমার সবার জানা।

এই সব ব্যবসায়ীদের কাছে গিয়ে রেমিট্যান্সের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে চাইলে তারা আরও বেশি রেট আর তাড়াতাড়ি পাঠানোর কথা বলে হুন্ডির মাধ্যমে পাঠাতে প্রলুব্ধ করে। কারা আনছে এত টাকা? এত টাকা এনে কি করছে? বাড়ি কিনছে নগদে! ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলছে।

মরা যারা কানাডায় বিভিন্ন পেশায় জড়িত, কতজন চিন্তা করতে পারি নগদ টাকায় বাড়ি কেনার! আবার ওইসব বাড়ি কিনতে, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে আমরাই সহযোগিতা করছি।

পয়সা বেশি থাকলে খাতির করছি, স্পনসরের নেয়ার জন্য দৌড়াচ্ছি। বাংলাদেশের কতজন জনপ্রতিনিধি, আমলা, সরকারী কর্মচারীর ছেলেমেয়েরা এই দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে পড়াশুনা করে তার খবর কি কেউ রাখে?

বিদেশী হিসেবে এই দেশে পড়তে আসলে এই দেশের নাগরিকদের চাইতে দ্বিগুনেরও বেশি টিউশন ফি দিতে হয়!

অপরদিকে আমরা যারা এই দেশের স্থায়ী বাসিন্দা বা নাগরিক হিসেবে পড়াশুনা করি, সেই পড়াশুনা বাবদ সরকারের কাছ থেকে নেয়া লোন শোধ দিতে বছরের পর বছর পার হয়ে যায়! অথচ, সেই আমরাই দেশ থেকে যখন কোন আমলা বা জনপ্রতিনিধি তাদের সন্তানদের দেখতে এই দেশে আসেন, আমরা তখন বুক ফুলিয়ে সেলফি তুলে ফেসবুকে পোস্ট দেই, ফুলের মালা নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকি!

একটি বার প্রশ্নও করিনা যে, এই তোরা এত টাকা কোথায় পেলি? শুধুমাত্র যখন কারো নামে কোন রিপোর্ট বের হয় তখনই আমরা রা রা করা শুরু করে দেই! এবং কয়েকদিন পরে তা বেমালুম ভুলে যাই!

তাই বলি, দুর্নীতি বন্ধ করতে চাইলে শুধুমাত্র কয়েকটা দিনের জন্য হইচই করলেই চলবে না; দুর্নীতির ক্ষেত্র এবং দুর্নীতিবাজদেরকে চিহ্নিত করে প্রতিটি ক্ষেত্রে অসহযোগীতা করতে হবে, ঘৃণা করতে হবে। আসুন, আমরা দুর্নীতিবাজদেরকে সামাজিকভাবে বয়কট করি।

 মো. আতিকুল ইসলাম, কানাডা প্রবাসী প্রকৌশলী ও সাংস্কৃতিক কর্মী
https://www.facebook.com/cbn24.ca/
Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email
CBN-Leaderate