টরন্টোয় মঞ্চায়ন হল যাত্রাপালা ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’, উচ্ছ্বসিত দর্শক (ছবি ও ভিডিও)

AdvertisementLeaderboard

দর্শকদের মুহুর্মুহু করতালি, রুদ্ধশ্বাস প্রতীক্ষা, যুদ্ধে পরাজয়ে পিনপতন নীরবতা, অশ্রুসজল চোখ, দাঁড়িয়ে শিল্পীদের সম্মান জানানো -এসবই ছিলো টরন্টোয় ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রার প্রদর্শনীতে।

শনিবার কানাডার টরন্টোর গ্র্যান্ড প্যালেস ব্যাঙ্কুয়েট হলে ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রার দুদিন ব্যাপী মঞ্চায়নের প্রথম দিনে দর্শকদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মত। গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী আমেজ পেতে এদিন পরিবার-স্বজনদের নিয়ে হাজির হয়েছেন তারা।

শিশু, তরুণ, যুবা, বয়স্ক, বাঙালি কমিউনিটির প্রায় সব শ্রেণী-পেশার মানুষ প্রাণভরে উপভোগ করেছেন ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রার অনবদ্য উপস্থাপনা। রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী, আইনজীবী, শিক্ষক, লেখক, গবেষক, ব্যাংকার, ডাক্তার, গণমাধ্যম কর্মী, সমাজ কর্মী, সাংস্কৃতিক কর্মী সহ বহু মানুষের সম্মিলন ঘটে এই আয়োজনে। যাত্রা শুরুর পূর্বে আগত অতিথি এবং স্পন্সরদের ধন্যবাদ জানান ‘টরন্টো থিয়েটার প্লাস’-এর সাধারণ সম্পাদক রিজুয়ান রহমান।IMG_9532

IMG_9527IMG_9476‘টরন্টো থিয়েটার প্লাস’-এর সাড়ে চার মাসব্যাপী অক্লান্ত পরিশ্রমের সার্থক এক পরিবেশনা দেখলো কানাডার বাঙালিরা। সুদূর প্রবাসে থেকেও যে বাংলার ইতিহাস এবং সংস্কৃতির আদিম ও অকৃত্রিম ধারা চর্চা করা যায় তা যেন দেখিয়ে দিলো সদ্য জন্ম লাভ করা এই সংগঠনটি। ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ দর্শকদেরও যেন নিয়ে গেলো কানাডা থেকে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত কোন গ্রামে, যেখানে সবুজ-শ্যামল প্রকৃতিতে বিনোদনের খোরাক যোগায় যাত্রাপালা।IMG_9479

IMG_9721ইতিহাসের পাতা থেকে একেকটি চরিত্র যেন চোখের সামনে ভেসে উঠছিলো সবার। পলাশীর প্রান্তরে বাংলার স্বাধীনতার লাল সূর্যটাকে নিশ্চিহ্ন করতে সিরাজউদ্দৌলা, আলেয়া, গোলাম হোসেন, লুৎফা, মোহন লাল, ঘসেটী বেগম, রাজবল্লভ, ক্যাপ্টেন ওয়াটস্, মীর জাফর, জগৎ শেঠ, উমি চাঁদ, মোহাম্মদী বেগ -এদের কার কী ভূমিকা ছিলো তা যেন নতুন করে আরেকবার দেখে নিলো দর্শকরা। জেনে নিলো কীভাবে ২০০ বছরের জন্য ইংরেজ বেনিয়াদের দাসত্ব মেনে নিয়েছিলো বাঙালিরা। ‘মীরজাফর’ নামটি কীভাবে ‘বিশ্বাসঘাতক’ এর প্রতিশব্দ হল তাও পুনরায় দেখলো সবাই।

টরন্টোয় থেকেও ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রা দেখে দর্শকরা ছিলেন বেশ উচ্ছ্বসিত। টেলিভিশনে দেখলেও অনেক তরুণদের জন্য এটাই ছিলো মঞ্চের সামনে বসে দেখা প্রথম যাত্রাপালা। তাই তাদের ক্ষেত্রে এই অনুভূতি এককথায় অসাধারণ।

এই প্রজন্মের দর্শকরাও যাত্রার এমন আয়োজন দেখে বেশ উৎফুল্ল ছিলেন। প্রত্যাশা করেন, গ্রাম-বাংলার চিরায়ত রূপ যেন বিভিন্ন যাত্রাপালার মাধ্যমে পরবর্তীতেও আয়োজকরা তুলে ধরেন।

‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রায় বিভিন্ন নাম ভূমিকায় যারা অভিনয় করেছেন তারা হলেনঃ

সিরাজউদ্দৌলাঃ মানিক চন্দ

আলেয়াঃ অরুন্থিয়া ঊর্মী

গোলাম হোসেনঃ শেখর গোমেজ

লুৎফাঃ লিটলী রায়

মোহন লালঃ সুব্রত পুরু

ঘসেটী বেগমঃ জাহানা চিনু

রাজবল্লভঃ মেহরাব রহমান

ক্যাপ্টেন ওয়াটসঃ ম্যাক আজাদ

মীরজাফরঃ চিত্ত ভৌমিক

জগৎ শেঠঃ অনুপ সেনগুপ্ত

উমি চাঁদঃ দিলীপ বিশ্বাস

মোহাম্মদী বেগঃ মোস্তফা দুলারী

IMG_9570IMG_9659নৃত্য পরিবেশনায় ছিলেন সুকন্যা নৃত্যাঙ্গনের তাসনিম আহমেদ, শ্রেয়া সাহা, নাজিয়া হক, রচনা খন্দকার, প্রার্থনা পল, রায়না রাকিব ও হৃদা রহমান।

নৃত্য পরিচালনা, রূপসজ্জা ও পোশাকের দায়িত্বে ছিলেন অরুণা হায়দার, আনিয়া হক (রূপসজ্জা সহকারী), মঞ্চ সজ্জায় জীন ইসলাম, সার্বিক সহযোগিতায় অজন্তা চৌধুরী।

শচীন্দ্রনাথ সেনগুপ্ত রচিত ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রাটির নির্দেশনা দিয়েছেন মানিক চন্দ এবং সুব্রত পুরু।

দুই দিনব্যাপী ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রা মঞ্চায়নের আজকেই শেষ দিন।

ছবিতে ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’ যাত্রার কিছু মুহূর্তঃ

IMG_9867IMG_9756IMG_9838IMG_9781IMG_9780IMG_9775IMG_9686IMG_9604IMG_9632IMG_9537Screen Shot 2017-03-19 at 11.18.53 AM copy

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email