টাইম ম্যাগাজিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে যে ১৪টি মিথ্যা বলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

AdvertisementLeaderboard
সিবিএন২৪ ডেস্কঃ

নিজের মিথ্যা বলা নিয়ে সম্প্রতি টাইম ম্যাগাজিনকে একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই সাক্ষাৎকারে মিথ্যা বলার বিষয়টি অস্বীকার করেন ট্রাম্প। তবে ওই সাক্ষাৎকারের মধ্যেই কমপক্ষে ১৪টি মিথ্যা বলেছেন তিনি।

১. ট্রাম্প দাবি করেন, সুইডেন নিয়ে তার বক্তব্যের পরদিন সবাই উন্মাদ হয়ে যায় এবং পরের দিন সেখানে দাঙ্গা হয় ও এতে নিহতের ঘটনাসহ নানা সমস্যার সৃষ্টি হয়।

সত্য: ট্রাম্পের মিথ্যা বক্তব্যের একদিন নয় বরং দুইদিন পর ওই দাঙ্গার ঘটনা ঘটে এবং ওই ঘটনায় কেউ মারা যায়নি।

২. ট্রাম্প দাবি করেছিলেন ন্যাটো অকেজো হয়ে গেছে। ন্যাটো সন্ত্রাসবাদ ঠেকাতে পারছে না বরং বাড়াচ্ছে।

সত্য: সন্ত্রাসবাদ দমনে অনেক ভূমিকা পালন করছে ন্যাটো।

৩. তিনি দাবি করেন, আমিই বলেছি জোট দেশগুলোকে টাকা দিতে হবে। কেউই এ বিষয়টা জানতো না এবং কেউ দিচ্ছিলও না। আমি বুঝতে পেরেছি।

সত্য: বারাক ওবামা বলেছিলেন যে ন্যাটোর জোটগুলো তাদের কথা অনুযায়ী জিডিপির দুই শতাংশ প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয় করছেন না।

৪. ট্রাম্প দাবি করেন যে তিনি গণভোটের আগেই জানতেন যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করছে।

সত্য: ট্রাম্প আগে জানতেন না যে যুক্তরাজ্য ইইউ ত্যাগ করছে। তিনি বলেছিলেন যে যুক্তরাজ্যের মানুষের উচিত ইইউ ত্যাগ করার পক্ষে ভোট দেওয়া। এটা তার সুপারিশ ছিল, ভবিষ্যদ্বাণী নয়।

৫. তার দাবি, ফোনে আঁড়ি পাতা নিয়ে সর্বদা উদ্ধৃতি করেছিলেন তিনি।

সত্য: ওবামা তার ফোনে আঁড়ি পেতেছিলেন এমন চারটির মধ্যে মাত্র দুইটিতে উদ্ধৃতি ব্যবহার করেছিলেন তিনি।

৬. ট্রাম্প দাবি করেন ফোনে আঁড়িপাতা নিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত সংবাদের শিরোনাম পরিবর্তন করা হয়।

সত্য: টাইমস তাদের শিরোনাম পরিবর্তন করেনি বরং তাদের প্রিন্ট ও অনলাইনে ভিন্ন শব্দ ব্যবহার করেছে যেটা খুবই সাধারণ।

৭. ট্রাম্প দাবি করেছিলেন যে ভোটারদের অনেকের নিবন্ধনই ভুয়া এবং তারা বেআইনীভাবে ভোট দিচ্ছেন।

সত্য: রিপাবলিকান সেক্রেটারিসহ অনেকে বিশেষজ্ঞই বলেছেন এমন লোকের সংখ্যা খুবই কম।

৮. তিনি আবারও দাবি করেন, আমি ব্রেক্সিট হবে সেটা ধারণা করেছিলাম। লোকজন হেঁসেছিল কিন্তু আমি বলেছিলাম যে ব্রেক্সিট হবেই।

সত্য: পুরোপুরিই মিথ্যা

৯. নিজের ক্যাম্পেইনের সময় তিনি দাবি করেছিলেন, টেড ক্রজের বাবাকে লি হার্ভে ‍ওসওয়াল্ডের সঙ্গে দেখা গিয়েছিলো। তিনি বলেন, সেটা আমার কথা ছিলো না। একটা পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিলো এবং আমি সেটাই বলেছিলাম।

সত্য: ওই কথা ন্যাশনাল ইনকোয়ারে প্রকাশিত হয়েছিল কিন্তু ট্রাম্প বক্তব্য দেওয়ার সময় ওই পত্রিকার কথা উল্লেখ না করে সরাসরি নিজেই বক্তব্য দেন।

১০. তিনি দাবি করেছিলেন, আমি দুই রাত আগে কেনটাকিতে গিয়েছি এবং সেখানে বাস্কেটবল এলাকাতে ২৫ হাজার লোক আছেন।

সত্য: সেখানে সর্বমোট ১৮ হাজার লোকের ধারণক্ষমতা আছে।

১১. তিনি দাবি করেন, নিউ ইয়র্ক টাইমস এবং সিএনএনসহ অন্যরা জরিপ করে কিন্তু সেগুলো খুবই খারাপ ও মিথ্যা ছিলো।

সত্য: সত্যি নয়।

১২.  তিনি দাবি করেন, আমি বলেছিলাম ব্রেক্সিট পাস হচ্ছে এবং লোকজন হেঁসেছিলো কিন্তু আমি সঠিকই ছিলাম।

সত্য: এটাও মিথ্যা।

১৩. তিনি দাবি করেন, সংবাদ মাধ্যমে তিনিই সবচেয়ে বেশি জায়গা পেয়েছেন।

সত্য: যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টদের মধ্যে রিচার্ড নিক্সন সবচেয়ে বেশি সংবাদ মাধ্যমের সংবাদ হয়েছিলেন এবং ট্রাম্প তার অর্ধেকও পাননি।

১৪. তিনি আবারও দাবি করেন, ফোনে আঁড়িপাতা নিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ তারা ইন্টারনেট থেকে নামিয়ে ফেলেছে।

সত্য: এটাও তিনি মিথ্যা বলেছেন।

মেট্রো নিউজ
Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email