ডাউন পেমেন্ট থাকার পরও বাড়ি কিনতে পারবেন না ১০% ক্রেতা

2797
AdvertisementLeaderboard

সামি খান

।। টরন্টো থেকে ।।

গত এপ্রিলে ফরেন বায়ার ট্যাক্স পদ্ধতি চালু করার পর বাড়ির কেনাবেচা কিছুটা থেমে যায়। এখন আবারও মর্টগেজ পদ্ধতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য ১ জানুয়ারি ২০১৮ থেকে মর্টগেজের জন্য এপ্লাই করতে হলে সবাইকে স্ট্রেস টেস্টের ভিতর দিয়ে যেতে হবে।

ধারণা করা হচ্ছে নতুন এই নিয়ম চালু হবার পরও হাতে ২০ পার্সেন্ট অথবা এরও বেশি ডাউনপেমেন্ট দেবার ক্ষমতা আছে এমন ক্রেতাদের মধ্যেও সম্ভাব্য ১০ পার্সেন্ট ক্রেতা বাড়ি কেনার যোগ্যতা হারাবেন, এমনটাই বলছে ব্যাঙ্ক অব কানাডা।

তাই এই নতুন নিয়মের ফলে বাড়ির ক্রেতারা হয়তো অপেক্ষাকৃত ছোট কম দামের বাড়ির দিকে ঝুঁকে পড়বে, আবার অনেকে আরো টাকার জোগাড় করবেন ডাউনপেমেন্টের পরিমান আরো বাড়ানোর জন্য এবং কেউ কেউ হয়তো বাড়ি কিনতে আরো দেরি করবেন। অনেকে ঝুঁকিপূর্ণ লোন নিবেন যেগুলো ফেডারেল গভর্মেন্ট দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নয়।

নিয়মের পরিবর্তনের ফলে নতুন মর্টগেজ আবেদনকারীদের প্রমান করতে হবে যে বর্তমান ইন্টারেস্ট রেটের চেয়েও ২ পার্সেন্ট বেশিতে যেন তারা যোগ্য বলে বিবেচিত হন যেটাকে ‘স্ট্রেস টেস্ট’ হিসেবে বলা হয়। ডাউনপেমেন্ট যাদের ২০ পার্সেন্টেরও কম তাদের জন্যও ‘স্ট্রেস টেস্ট’ বাধ্যতামূলক।

এই স্ট্রেস টেস্টের ফলে ১৫ পার্সেন্ট ঋণগ্রহীতার বাড়ি কেনার ক্ষমতা কমে যাবে।

ধারণা করা হচ্ছে এই নিয়মের পরিবর্তনের ফলে আগামী বছর হয়তো বাড়ির বিক্রি অনেকটা কমে যেতে পারে। কানাডিয়ান হোম বিল্ডার এসোসিয়েশন এর পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী বছর মোট বাড়ির কেনা বেচা প্রায় ১০ থেকে ১৫ পার্সেন্ট পর্যন্ত কমে যেতে পারে।

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email