ব্ল্যাকওয়াশ!

AdvertisementLeaderboard

বহু বছর পর ধবলধোলাই খেলুম। বছরের শেষ দিনে মর্মান্তিক উপহার! আগের ম্যাচে তো তাও জ্বালাময়ী স্ট্যাটাস দেয়া গেছে কিন্তু এই ম্যাচটায় জ্বালাময়ী স্ট্যাটাস দেয়ার মত বিষয়বস্তু পর্যন্ত খুঁজে পাচ্ছি না। আমাদের নির্বাচক, কোচের দ্বৈত খাইয়া দে প্রতিযোগীতায় আমরা তানবীর ছেলেটাকে বলির পাঠা বানিয়ে খাইয়া দিলাম। এভাবেই আমরা প্রতি ম্যাচে ২/৩ টা অভিষেক করায় বছরে ৭/৮ জন করে তরুন ক্রিকেটারদের খাইয়া দিই।

সিনিয়র প্লেয়াররা যখন দায়িত্বজ্ঞানহীন, কান্ডজ্ঞানহীন ক্রিকেট খেলে তখন তানবীররা অভিষেকের প্রথম দুই তিন ম্যাচেই আপনাকে ম্যাচ জিতায়া দেবে না, তানবীর যেচে এসে ইচ্ছা করে জাতীয় দলে আসে নাই ।তাকে নিয়ে কোচ জুয়া খেলেছে সে জুয়াতে কোচ হয়তো হেরে গেছে কিন্তু তানবীরকে খেয়ে দিছে। মূল ক্ষতিটা হলো ঐ তানবীরেরই। দুঃখিত তানবীর! 

২০১৬ তে আমরা তেমন ম্যাচও পাইনি, পুরো বছরে ৮/৯ টা ম্যাচ পেয়েছি মাত্র। ২০১৭ সাল আমাদের ব্যস্ত সূচী দম ফালানোর সুযোগ নেই। ভারত, শ্রীলঙ্কা, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, সাউথ আফ্রিকা ট্যুর আরো কত কিছু! টানা অনেক তো সিরিজ জিতলাম, একটা সিরিজ না হয় আমাদের মত করে শেষ করতে পারলাম না, ব্যপার না।

হ্যাপি ব্ল্যাকওয়াশ! হ্যাপ্পী নিউ ইয়ার!

[আশিকুর রহমান শোভন এর ফেইসবুক থেকে]

Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email