রক্তাক্ত সিলেটঃ পুলিশসহ নিহত ৬, আহত ৪৩, জড়িত আইএস (ভিডিও)

AdvertisementLeaderboard
সিলেটে কথিত জঙ্গি হামলায় আহত একজনকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, ছবিঃ আনিস মাহমুদ

সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় জঙ্গিদের বোমা হামলায় পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সাংবাদিক, পুলিশ, র‍্যাব সদস্যসহ ৪৩ জন আহত হয়েছেন। তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জানিয়েছে, নিহতদের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এই হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। এই গোষ্ঠীর কথিত বার্তা সংস্থা ‘আমাক’ এই খবর দিয়েছে বলে জানিয়েছে অনলাইনে জঙ্গিদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণকারী যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ।

গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় দিবাগত রাত আড়াইটায় সিলেটের দক্ষিণ সুরমার শিববাড়ি এলাকার আতিয়া মহলে এই জঙ্গিবিরোধী অভিযান শুরু হয়। তবে এখনো অভিযান শেষ হয়নি। এ নিয়ে সিলেটে  থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

অভিযানস্থলের চারপাশে রয়েছে সেনা, পুলিশ ও র‍্যাবের কড়া পাহারা।

জঙ্গিবিরোধী এই অভিযানের মধ্যে আতিয়া মহলের প্রায় দেড় শ গজ দূরে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে সেনাবাহিনী। এই সম্মেলন শেষ হতে না-হতেই আতিয়া মহল থেকে প্রায় আড়াই শ গজ দূরে প্রচণ্ড শব্দে বিস্ফোরণ হয়। এর ৪০-৪৫ মিনিট পর আবারও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। দ্বিতীয় বিস্ফোরণস্থলটি ছিল প্রথম বিস্ফোরণস্থল থেকে শ খানেক গজ দূরে। এই দুটি বিস্ফোরণই ঘটে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিরাপত্তাবলয়ের মধ্যে।

সিলেটে পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) পরিদর্শক চৌধুরী আবু মো. কয়সর, মদনমোহন কলেজের হিসাববিজ্ঞান দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ওয়াহিদুল ইসলাম অপু, সিলেটের দাড়িয়াপাড়ার বাসিন্দা ব্যবসায়ী শহীদুল ইসলাম, জালালাবাদ থানার ওসি (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের উপপরিবেশ-বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল ফাহিম, এবং ব্যবসায়ী খাদিম শাহ।

ভবনের ২৯টি ফ্ল্যাটের একটি স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ভাড়া নেওয়া জঙ্গিদের অবস্থা সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায়নি। বাকি ২৮টি ফ্ল্যাটে বৃহস্পতিবার রাত থেকে নারী, শিশু, বৃদ্ধসহ ৭৮ জন বাসিন্দা আটকা পড়েছিলেন। তবে তাদের সবাইকে ইতোমধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে।

ছবি, ভিডিও ও তথ্য সূত্রঃ প্রথম আলো

আরও পড়ুনঃ

সিলেটে কথিত জঙ্গি হামলার সর্বশেষঃ দুই সাংবাদিকের বক্তব্য
Facebook Comments
Print Friendly, PDF & Email